বিশ্ব বই দিবস উপলক্ষে নয় মাইল ত্রিপুরা পাড়া নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের উদ্যোগে র‌্যালী ও আলোচনা সভা


খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি

       আজ ২৩ এপ্রিল বিশ্ব বই দিবস উপলক্ষে খাগড়াছড়ি দীঘিনালা নয় মাইল ত্রিপুরা পাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের উদ্যোগে র‌্যালী ও বই পড়ার গুরুত্ব বিষয়ক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি বাবু কৃষ্ণ কিশোর ত্রিপুরা সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলা একাডেমী পুরষ্কার প্রাপ্ত একমাত্র আদিবাসী গবেষক ও লেখক জনাব প্রভাংশু ত্রিপুরা মহোদয়।
      এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন,  বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির উপদেষ্টা বাবু চন্দ্র কিরণ ত্রিপুরা, স্থানীয় মেম্বার গনেশচন্দ্র ত্রিপুরা, রামকৃষ্ণ মিশন সেবাশ্রমের সাধারণ সম্পাদক, সমাজকর্মী বাবু জয় প্রকাশ ত্রিপুরা, ত্রিপুরা স্টুডেন্টস্ ফোরাম, বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি বাবু দেবাশীষ ত্রিপুরা, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য বাবু রাজীব ত্রিপুরা প্রমুখ।
      অনুষ্ঠানে অতিথিরা বলেন, বউ পড়ার গুরুত্ব বিষয়ক বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয় উপস্থাপন করেন। ইউনেস্কোর উদ্যোগে ১৯৯৫ সাল থেকে প্রতিবছর এই দিবসটি পালন করা হয়ে থাকে। বই দিবসের মূল উদ্দেশ্য হলো, বই পড়া, বই ছাপানো, বইয়ের কপিরাইট সংরক্ষণ করা ইত্যাদি বিষয়ে জনসচেতনতা বাড়ানো।


        বিশ্ব বই দিবসের মূল ধারণাটি আসে স্পেনের লেখক ভিসেন্ত ক্লাভেল আন্দ্রেসের কাছ থেকে। ১৬১৬ সালের ২৩ এপ্রিল মারা যান স্পেনের আরেক বিখ্যাত লেখক মিগেল দে থের্ভান্তেস। আন্দ্রেস ছিলেন তার ভাবশিষ্য। নিজের প্রিয় লেখককে স্মরণীয় করে রাখতেই ১৯২৩ সালের ২৩ এপ্রিল থেকে আন্দ্রেস স্পেনে পালন করা শুরু করেন বিশ্ব বই দিবস। এরপর দাবি ওঠে প্রতিবছরই দিবসটি পালন করার। অবশ্য সে দাবি তখন নজরে আসেনি কারোই। বহুদিন অপেক্ষা করতে হয় দিনটি বাস্তবে স্বীকৃতি পাওয়ার জন্য।
        অবশেষে ১৯৯৫ সালে ইউনেস্কো দিনটিকে বিশ্ব বই দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দেয় এবং পালন করতে শুরু করে। এরপর থেকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রতিবছর ২৩ এপ্রিল বিশ্ব বই দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে।
সভা সঞ্চালনা করেন নয় মাইল ত্রিপুরা পাড়া নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বাবু তপু ত্রিপুরা এবং স্বাগত বক্তব্য রাখেন সহকারী শিক্ষক বাবু হরলাল ত্রিপুরা।

দহেন বিকাশ ত্রিপুরা


SHARE THIS

0 Comments:

মতামতের জন্য ধন্যবাদ।