দুঃখিনী বাংলাদেশের দুঃখ মুসলিমদের দূর্দসা

প্রসঙ্গ - নোবেল ও প্রিয়া সাহা

- টিভি সাক্ষাৎকারে নোবেল বলেছেন,‘রবীন্দ্রনাথের লেখা জাতীয় সঙ্গীত ‘আমার সোনার বাংলা’ যতটা না আমাদের দেশকে এক্সপ্লেইন করে তারচেয়ে কয়েক হাজার গুণে এক্সপ্লেইন করে প্রিন্স মাহমুদ স্যারের লেখা ‘বাংলাদেশ’ গানটি এছাড়া সে কিন্তু দেশের বিরুদ্ধে ও কিছু বলেনি কিংবা পরিবর্তন করতেও বলেনি। সে তার মনের কথাটি বলতে চেয়েছে, তাকে কোন সংগীত টা দেশের প্রতি ভালোবাসা সৃষ্টি করে সেটাই সে জানিয়েছে।

- এরকম কথা যারা বলে তারা নাকি পাকিস্তানের দালাল,রাজাকার বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে এরকম মন্তব্যই করছে অনেকে। তার মানে কি,
 - জাতীয় খেলা হাডুডুর চেয়ে ক্রিকেট দেশকে বেশি এক্সপ্লেইন করছে এটা বললে আমি দেশদ্রোহী ?
- রাশিয়ার জাতীয় সংগীত পরিবর্তন হয়েছে তার মানে ওই দেশের মানুষ রাজাকার ?

- আর একজন হিন্দু নারী প্রিয়া সাহা বাংলাদেশ এ থেকে দেশের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করল। গোটা দেশ ও জাতিকে ছোট করল সবার সামনে। তার বিরুদ্ধে কোনো মন্ত্রী দেশদ্রোহী বা রাজাকার কোনো কথা বললোনা।উল্টো মাননীয় আইনমন্ত্রী বলল এত সাধারণ কথা নিয়া দেশদ্রোহী বলা উচিৎ না। ভারতে তার পক্ষ নিয়া মিছিল দেয়া হল।

- ইসকন এর মতো নামছাড়া সংগঠন কোমলমতি মুসলিম শিশুদেরকে প্রসাদ খাইয়ে হিন্দু ধর্মের মন্ত্র পাঠ করানো হলো কিন্তু তাদের বিরুদ্ধে মামলা করতে গেলে সরকার মামলা নেয়না। 
................ দুখিনি বাংলাদেশ ........

SHARE THIS

0 Comments:

মতামতের জন্য ধন্যবাদ।