পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণ প্রকল্পের ঋণ পরিশোধ চুক্তি স্বাক্ষরিত

ঢাকা, ১৪ ভাদ্র (২৯ আগস্ট)

পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়নে সরকার প্রদত্ত ঋণ পরিশোধের জন্য অর্থ বিভাগ ও বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের মধ্যে একটি ঋণ পরিশোধ চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। আজ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের উপস্থিতিতে এ চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠিত হয়।

চুক্তিপত্রে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের পক্ষে সেতু বিভাগের পরিচালক (অর্থ) ড. মো. মনিরুজ্জামান এবং অর্থ বিভাগের পক্ষে অতিরিক্ত সচিব মো. এখলাছুর রহমান স্বাক্ষর করেন।
এসময় মন্ত্রী উপস্থিত সাংবাদিকদের জানান, দ্রুতগতিতে পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ এগিয়ে চলছে। মূল সেতুর ৪২টি পিয়ারের মধ্যে ৩১টি পিয়ারের কাজ সম্পন্ন হয়েছে, বাকী ১১টি আগামী ডিসেম্বর নাগাদ শেষ হবে বলে আশা করা যাচ্ছে। এছাড়া মূল সেতুর সব পাইল ড্রাইভিং কাজ ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। এ পর্যন্ত মাওয়া সাইটে ২৭টি স্প্যান এসেছে, যারমধ্যে ১৪টি স্প্যান বসানো হয়েছে। পদ্মা সেতু নির্মাণের সার্বিক অগ্রগতি শতকরা ৭৩ ভাগ।
পদ্মা সেতু নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য সরকার বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষকে ২৯ হাজার ৮৯৩ কোটি টাকার ঋণ প্রদান করেছে। বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষকে এ ঋণ অর্থ বিভাগের মাধ্যমে প্রদান করা হয়েছে। পদ্মা সেতু নির্মাণের পর প্রাপ্ত আয় থেকে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ সরকারকে সুদসহ অর্থ পরিশোধ করবে। 
এছাড়া ঋণ চুক্তি মোতাবেক বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষ ২০২১-২২ অর্থবছর হতে অর্থবিভাগ তথা বাংলাদেশ সরকারকে ঋণ পরিশোধ করবে। উক্ত ঋণ পরিশোধের মেয়াদ হবে ৩৫ বছর। ১ শতাংশ সুদ হারে সুদসহ ঋণ পরিশোধ করা হবে। ঋণ পরিশোধের সিডিউল অনুযায়ী প্রতি অর্থবছরে প্রায় সর্বনিম্ন ৮২৬ কোটি হতে সর্বোচ্চ ১ হাজার ৪৭৫ কোটি টাকা পরিশোধ করতে হবে। চট্টগ্রামে নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল প্রকল্পের ব্যয়ও সরকারকে পরিশোধ করবে সেতু কর্তৃপক্ষ ।
চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে সেতু বিভাগের সিনিয়র সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো. নজরুল ইসলাম, অর্থ বিভাগের সচিব আব্দুর রউফ তালুকদারসহ অর্থ বিভাগ, সেতু বিভাগ এবং সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

SHARE THIS

0 Comments:

মতামতের জন্য ধন্যবাদ।