জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে ৭ মার্চের ওপর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

নিউইয়র্ক, ৮ মার্চ

জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে গতকাল ইউনেস্কো’র ‘বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য’ হিসেবে স্বীকৃত ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের ওপর আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা।

আলোচনার শুরুতে জাতির পিতার ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের ভিডিও প্রদর্শন করা হয়। ১৯৭১ সালের ৭ মার্চের ভাষণ জাতিকে বজ্রকঠিন ঐক্যের পতাকাতলে সমবেত করে সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের চূড়ান্ত প্রস্তুতি গ্রহণে উজ্জীবিত করেছিল, এই মন্তব্য করে রাষ্ট্রদূত বলেন, ইউনেস্কো কর্তৃক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু  শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণের স্বীকৃতি একদিকে যেমন পৃথিবীর মানুষকে বঙ্গবন্ধুর অবিসংবাদিত নেতৃত্ব ও আমাদের মুক্তিসংগ্রাম সম্পর্কে জানার সুযোগ করে দিয়েছে অপরদিকে কালোত্তীর্ণ এই ভাষণটি ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে ন্যায় ও মুক্তির পথে উজ্জীবিত করছে। তিনি বলেন, এই ভাষণ বিশ্বের মুক্তিকামী মানুষকে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে প্রেরণা যোগাবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশকে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলায় পরিণত করতে সকলকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে কাজ করার আহ্বান জানান রাষ্ট্রদূত। 
অনুষ্ঠানে জাতির পিতা, বঙ্গমাতা, জাতীয় চার নেতা, মহান মুক্তিযুদ্ধের ত্রিশ লাখ শহীদ, ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট নিহত জাতির পিতার পরিবারের সদস্যবৃন্দ, মুক্তিযোদ্ধা ও ভাষা আন্দোলনসহ গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার আন্দোলনের সকল শহীদের আত্মার মাগফেরাত এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের অব্যাহত অগ্রযাত্রা কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।
এছাড়া, এই দিন গ্রীস, ডেনমার্ক, কানাডা এবং ওয়াশিংটনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসেও যথাযোগ্য মর্যাদায় ঐতিহাসিক ৭ মার্চ পালিত হয়েছে।

SHARE THIS

0 Comments:

মতামতের জন্য ধন্যবাদ।