Showing posts with label ‍আটক. Show all posts
Showing posts with label ‍আটক. Show all posts
কচুয়ায় ২ বছরের সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেফতার

কচুয়ায় ২ বছরের সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেফতার

আবু সায়েম মৃধা - কচুয়া প্রতিনিধি


     কচুয়ায় ২ বছরের সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী মোঃ সবুজ পাটওয়ারিকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার (১৬ অক্টোবর) ভোর রাতে উপজেলার মাঝিগাছা গ্রাম থেকে কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আতাউর রহমান ভূঁইয়ার নেতৃত্বে সহকারী পুলিশ উপ-পরিদর্শক মফিজুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামীকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত সবুজ উপজেলার বিতারা ইউনিয়নের মাঝিগাছা গ্রামের আঃ রহিম পাটওয়ারির ছেলে।
      প্রসংগতঃ ২০১৭ সালে মোঃ সবুজ পাটওয়ারির স্ত্রী বাদী হয়ে যৌতুক নিরোধ আইন এর ৪ ধারায় তাকে বিবাদী করে মামলা করলে চাঁদপুরের বিজ্ঞ আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল মেজিস্ট্রেট সবুজকে দুই বছরের সশ্রম কারাদন্ড, ৫ হাজার টাকা অর্থদন্ডসহ অনাদায়ে একমাস বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন।
     এ ব্যাপারে কচুয়া থানার সহকারী পুলিশ উপপরিদর্শক মফিজুল ইসলাম এ প্রতিবেদককে বলেন, আমি কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আতাউর রহমান ভূঁইয়া স্যারের নেতৃত্বে মঙ্গলবার ভোররাতে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামী সবুজকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসি। এবং গ্রেফতারকৃত আসামী সবুজকে মঙ্গলবার (১৬ অক্টোবর) সকালে চাঁদপুর জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।

মংলায় স্ত্রী হত্যার অভিযোগে আটক স্বামী এনামুলকে আদালতে সোপর্দ

মংলায় স্ত্রী হত্যার অভিযোগে আটক স্বামী এনামুলকে আদালতে সোপর্দ

মংলা প্রতিনিধি - মাসুদ রানা


      মংলায় স্ত্রী হত্যার অভিযোগে আটক স্বামী এনামুলকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। হত্যা কান্ডের কারন ও প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে মঙ্গলবার তাকে আদালতে প্রেরন করা হয়। প্রাথমিক তদন্তে দাম্পত্ত কলহের জের ধরে এ হত্যাকান্ড ঘটেছে বলে পুলিশ জানায়। তবে তাকে আরও  জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য রিমান্ড আবদেন করা হবে বলে জানিয়েছেন মোংলা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ ইকবাল বাহার চৌধুরী ।
        তিনি জানান, সোমবার প্রকাশ্য দিবালোকে দুপুরে কোচিং করার সময় শহরতলীর টি এ ফারুক স্কুল এন্ড কলেজের একাদশ শ্রেনীর ছাত্রী মরিয়ম আক্তার শান্তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথারী কুপিয়ে জখম করে স্বামী এনামুল। পরে তাকে হাসপাতালে নেয়া হলে ডাক্তার শান্তাকে মৃত ঘোষনা করে। ঘটনার পর আত্মগোপনে থাকা স্বামী এনামুলকে  বাগেরহাটের রামপাল উপজেলার ফয়লায় এক আতœীয়ের বাড়ী থেকে তাকে আটক করে পুলিশ। 

মাংলায় মা ইলিশ রক্ষায় কোষ্টগার্ডের অভিযান, ২ জেলের কারাদন্ড

মাংলায় মা ইলিশ রক্ষায় কোষ্টগার্ডের অভিযান, ২ জেলের কারাদন্ড

মংলা প্রতিনিধি - মাসুদ রানা


        মংলায় মা ইলিশ সংরক্ষনে সুন্দরবনের বিভিন্ন নদী ও খাল এলাকায় কোষ্টগার্ড অভিযান চালিয়ে ২ জেলেকে আটক করা হয়েছে। গতকাল সোমবার দুপুরে কোস্টগার্ড পশ্চিম জোন ও মংলা মৎস্য অদিদপ্তরের যৌথভাবে অভিযান চারিয়ে তাদের আটক করা হয়। আটক দু’জেরেকে উপজেরা নির্বাহী কর্মকর্তা ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে এক মাস করে কারাদন্ড দিয়েছে। কোস্টগার্ড কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট আবদুল্লাহ আল মাহমুদ এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 
         কোষ্টগার্ডের এ কর্মকর্তা জানান, গতকাল সোমবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বেলা প্রায় আড়াইটা পর্যন্ত মংলার সুন্দরবন সংলগ্ন পশুর নদীসহ বিভিন্ন নদী ও খাল এলাকায় অভিযান চালানো হয়। আর এ অভিযানে প্রায় ১০ হাজার মিটার সিমফ্রাই জাল ও ১টি বেহুন্দি জাল জব্দ করা হয়। একই সঙ্গে এর সাথে সংশ্লিষ্ট ২ জেলেকে আটক করা হয়েছে। বাকি প্রায় ৭/৮ জন জেলে কোষ্টগার্ডের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায়। আটক জেলেরা হচ্ছেন- মংলা উপজেলার উলুবুনিয়া গ্রামের রাশেদ গাজীর পুত্র ঈসরাফিল শেখ (২৭) ও শাহাদাত শেখের পুত্র রনজিত শেখ (৩০)। আটক জেলেদের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রবিউল ইসলামের উপস্থিতিতে  ভ্রাম্যমাণ আদাললত বসিয়ে আটক ২ জেলেকে এক মাস করে বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয় এবং উদ্ধারকৃত জালগুলী পুড়িয়ে ধংশ করা হয়েছে।



লক্ষ্মীপুরে অস্ত্রসহ দুই যুবক আটক

লক্ষ্মীপুরে অস্ত্রসহ দুই যুবক আটক

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি - রবিন হোসেন তাসকিন


      লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলায় অভিযান চালিয়ে দুইটি অস্ত্রসহ ও দুই যুবককে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (২ অক্টোবর) সন্ধ্যায় উপজেলার হামছাদি ইউনিয়নের বিজয়নগর এলাকায় একটি বাড়ি থেকে এ অস্ত্র উদ্ধার করা হয়।
আটককৃতরা হলেন, নন্দনপুর গ্রামের নুর নবীর ছেলে মো. জাফর ও উত্তর হামছাদি গ্রামের অজি উল্যাহর ছেলে জাহিদুল ইসলাম বাবু ।
     পুলিশ জানান, বিজয়নগর এলাকার সুজনের ঘরে অস্ত্র ও ইয়াবা রয়েছে বলে তথ্য দেয় জাফর। পরে পুলিশ জাফরকে নিয়েই সেখানে অভিযানে যায়। কিন্তু অভিযান চলার এক পর্যায়ে তথ্যদানকারি জাফরকেই পুলিশের সন্দেহ হয়। তাতেই জাফরকে আটক করে পুলিশ এবং তার দেহে লুকিয়ে রাখা দুইটি পাইফগান উদ্ধার করে। এরপর জাফরের তথ্যমতে জাহেদুল ইসলাম বাবুকে আটক করা হয়।
      আটককৃত বাবুর ভগ্নিপতি হুমায়ুনের সাথে সুজনের বিরোধ চলছে। তাই সুজনকে ফাসানো জন্যই বাবুুর মাধ্যমে জাফরকে ব্যবহার করে। কিন্তু অপরকে ফাসাতে গিয়ে জাফর নিজেই ফেসে গিয়েছে। তবে পুলিশ ঘটনায় জড়িত হুমায়ুন ও সুজন পলাতক থাকায় তাদের আটক করা যায়নি।
      সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: লোকমান হোসেন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযানে যায় পুলিশ। কিন্তু অভিযান চলাকালীন তথ্যদানকারিকে সন্দেহ করে চেক করলে তার কাছে থেকে দুইটি পাইফগান পাওয়া যায়। পরে তার তথ্যমতে জাহেদুল ইসলাম বাবুকে আটক করা হয়। এ ঘটনার সাথে জড়িত আরো দুইজন এখনো পলাতক রয়েছে। আটককৃত দুইজনের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।
গোয়াইনঘাটে পতিপক্ষের হামলা লেবানন প্রবাসী গুরুতর আহত, আটক ১

গোয়াইনঘাটে পতিপক্ষের হামলা লেবানন প্রবাসী গুরুতর আহত, আটক ১

জৈন্তাপুর প্রতিনিধি - গোলাম সরোয়ার বেলাল


       গোয়াইনঘাটে গরুর ধান খাওয়া নিয়ে পতিপক্ষের হামলায় ১ যুবক আহত হয়েছেন। থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এজহার নামীয় এক আসামীকে পুলিশ আটক করেছে। গত শুক্রবার সকালে উপজেলার রস্তমপুর ইউনিয়নের ইটাচকি গ্রামে এঘটনা ঘটে। আহতের নাম এরশাদ আলী (৩০) তিনি ইটাচকি গ্রামের বাসিন্ধা। ধৃতের নাম মাসুক আহমদ (২১) সে একই গ্রামের মস্তফা মিয়ার পুত্র । 
       এব্যাপারে এরশাদের ভাই সোনাফর আলীর পুত্র আব্দুল কাইয়ুম বাদী হয়ে  ইটাচকি গ্রামের  মুজম্মিল আলীর পুত্র দুলালকে  প্রধান আসামী ও আরও ১২জনের নাম উল্লেখ করে গোয়াইনঘাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং (২৪), তাং ২৮-৯-১৮ইং। মামলার এজহার সুত্রে ও স্থানীয়দের সাথে আলাপ কালে জানাগেছে গত বৃহস্পতিবার আহত এরশাদ আলীর একটি গরু অসাবধানতাবসত বিবাদী দুলাল’র কিছু ধান ক্ষেত নষ্ট করে। এতে উভয় পক্ষে বিরোধ সৃষ্টি হয়। এরই জের ধরে গত শুক্রবার সকালে এরশাদ আলী গ্রামের মসজিদের রাস্তা দিয়ে বাড়িতে যাওয়ার পথে বিবাদী দুলাল, আজাদসহ ১০/১২জন দেশীয় অস্ত্র  নিয়ে এরশাদের উপর অর্তর্কিত হামলা চালান। এসময় এরশাদ রক্তাক্ত জখম হয়ে অজ্ঞান হয়ে পড়েন। পথচারীরা দেখে তাকে উদ্ধার করে দ্রুত সিওমেক হাসপাতালে ভতি করেন। 
      জানতে চাইলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই রতন জানান এঘটনায় থানায় মামলা রের্কড হয়েছে এবং এজহার নামীয় মাসুক আহমদ নামের একজনকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে।
মংলার চিহ্ণিত মাদক ব্যাবসায়ী নয়ন গ্রেফতার

মংলার চিহ্ণিত মাদক ব্যাবসায়ী নয়ন গ্রেফতার

মংলা প্রতিনিধি

     মংলা অস্ত্র ও গুলীসহ একাধিক মামলার আসামী চিহ্ণিত মাদক ব্যাবসায়ী নয়নকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ২৪ সেপ্টেম্বরবার রাতে শহরতলীর বাসষ্টান্ড টার্মিনাল এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। গতকাল সকালে বাগেরহাট আদালতের মাধ্যমে তাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে বলে জানায় পুলিশ। নয়ন চাদপাই ইউনিয়নের কানাইনগর এলাকার বাসীন্দা মোঃ আজাদের ছেলে বলে এলাকাবাসী জানায়। মংলা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইকবাল বাহার চৌধুরী জানান, গোপান সংবাদের সুত্রধরে রাত ৯টার দিকে পৌর শহরের নতুন বাসষ্টার্ন টার্মিনাল এলাকায় অভিযান চালানো হয়। এসময় পুলিশ দেখে দৌড়ে পালানোর সময় নয়ন (২৮) নামের একজনকে আটক করা হয়েছে। এসময় তার দেহ তল্লাশী চালিয়ে তার কাছ থেকে ১টি ওয়ান সুটারগান ও ২রাউন্ড তাজা গুলী উদ্ধার করে পুলিশ।  
      আটক নয়নের বিরুদ্ধে মংলা থানায় দুইটি মাদক,একটি চাদঁবাজি,একটি নারী নির্যাতন ও দুটি মারামারীসহ একাধিক মামলা রয়েছে বলেও জানায় থানার অফিসার ইনচাজ মোঃ ইকবাল বাহার চৌধুরী। আটক নয়ন দীর্ঘদিন যাবত মোংলাসহ এর আশপাশথ এলাকায় রমরমা মাদকের ব্যাবসা ও ব্যাপক চাদাঁবাজি করে আসছিল বলেও জানায় মংলা থানা পুলিশ।

র‌্যাব’র অভিযানে অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ এক বনদস্যু গ্রেফতার

র‌্যাব’র অভিযানে অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ এক বনদস্যু গ্রেফতার

মংলা প্রতিনিধি - মাসুদ রানা


      সুন্দরবনের বলেশ্বর নদী থেকে অভিযান চালিয়ে অস্ত্র ও গুলীসহ এক বনদস্যুকে আটক করেছে র‌্যাব-৮ এর সদস্যরা। বুধবার রাতে কুখ্যাত জলদস্যু সাত্তার বাহিনীর সক্রিয় সদস্য তায়েব আলীকে আটক করা হয়। অস্ত্রসহ বনদস্যূকে থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।
      র‌্যাব-৮ জানায়, দেশের দক্ষিনাঞ্চলে অবস্থিত সুন্দরবনের উপর নির্ভরশীল হাজার হাজার উপকূলবর্তী মানুষ প্রতি নিয়তই বনদস্যু/জলদস্যুদের আক্রমনের শিকার হয়। সুন্দরবন সহ বিস্তীর্ণ উপকূলীয় এলাকায় বনদস্যু, জলদস্যুদের দমনের লক্ষে র‌্যাব, পুলিশ, কোস্টগার্ড, বিজিবি ও বন বিভাগের সমন্বয়ে একটি টাস্কফোর্স কাজ করছে, র‌্যাব সুন্দরবন এলাকায় জলদস্যু ও বনদস্যুদের বিরুদ্ধে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করে থাকে। ইলিশের মৌসুমকে সামনে রেখে র‌্যাব-৮ নিয়মিত টহলের মাধ্যমে জেলেদের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কাজ করে আসছে। গত ১৯ সেপ্টেম্বর তারিখ হতে সুন্দরবনের বলেশ্বর নদীর বিভিন্ন স্থানে বিশেষ টহল পরিচালনা করতে থাকে। র‌্যাব-৮ এর সদস্যরা গায়েন্দা কার্যক্রমের ভিত্তিতে জলদস্যু বাহিনীর অবস্থান ও আস্তানা সনাক্ত করে সেই মোতাবেক উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের তাৎক্ষনিক নির্দেশে র‌্যাব-৮ একটি আভিযানিক দল সুন্দরবনের বলেশ্বর নদীর পাড় ধরে চিহ্নিত এলাকার দিকে অগ্রসর হতে থাকে। বিকাল আনুমানিক ৫টারদিকে বনের বলেশ্বর নদীর বকুলতলা গ্রামস্থ নামক স্থানে কিছু লোককে সন্দেহজনক ভাবে ঘোরাফেরা করতে দেখে র‌্যাব। 
      এ সময় কৌশলগত ভাবে তাদের কাছাকাছি পৌছালে সন্দেহভাজন দস্যুরা দৌড়ে পারানোর চেষ্টা করার সময় একজনকে আটক করা হয় এবং বাকিরা পালিয়ে যায়। আটককৃত দস্যুকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে কুখ্যাত জলদস্যু সাত্তার বাহিনীর সক্রিয় সদস্য বলে স্বিকার করে। তার নাম মোঃ তায়েব আলী শেখ (৪৫), সে বাগেরহাট জেলা সদরের উত্তর খানঁপুর গ্রামের আবু সাইদ শেখ’র ছেলে বলে জানায়। সেখানে ব্যাপক তল্লাশী চালিয়ে বনের মধ্য হতে জলদস্যুদের ব্যবহৃত ১টি বিদেশী তৈরি একনালা বন্দুক, ১৩ রাউন্ড তাজা গুলি,২টি দেশীয় ধারালো অস্ত্র,১টি গুলি রাখার বান্ডুলিয়ার উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত অস্ত্রসহ বনদস্যুকে পাথরঘাটা থানায় হস্তান্তর করা হয় এবং পালিয়ে যাওয়া অন্যান্য জলদস্যুদের আটকে র‌্যাবের অভিযান ও গোয়েন্দা তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে বলে জানায় র‌্যাব সদস্যরা।
ডোমারে বিদ্যুৎ অফিসের গাড়ী চালকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার, আটক ৭

ডোমারে বিদ্যুৎ অফিসের গাড়ী চালকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার, আটক ৭

বখতিয়ার ঈবনে জীবন - নীলফামারী প্রতিনিধি


      নীলফামারীর ডোমার বিদ্যুৎ অফিসের গাড়ী চালক স্বাধীন ইসলামের(২২ ) গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার সন্ধায় উপজেলার আনসার-ভিডিপি উন্নয়ন ব্যাংকের উপর তলায় তার শয়নকক্ষ থেকে গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়। স্বাধীন ইসলাম রংপুর কারমাইকেল কলেজ রোডের মোঃ বাবু ইসলামের ছেলে। সে ডোমার বিদ্যুৎ অফিসের নির্বাহী পরিচালকের গাড়ীর ড্রাইভার।
      ডোমার বিদ্যুৎ বিতরন বিভাগের নির্বাহী পরিচালক মোঃ সাইফুল মন্ডল জানান,উপজেলা পরিষদ মাঠ সংলগ্ন আনসার-ভিডিপি উন্নয়ন ব্যাংকের উপরের তলার একটি কক্ষে সে ভাড়া থাকতো। সকাল থেকেই তার ফোন বন্ধ অফিসেও আসেনি। বিকালে কাজের প্রয়োজনে তার বাড়ীতে আমার অফিসের লোকদের পাঠায় দেই তার খোজে। অফিসের লোকজন তার কক্ষের সামনে তার স্যান্ডেল দেখতে পায়। তবে রুমটি বাইরে থেকে তালাবদ্ধ ছিল। অফিসের লোকজন তাকে ডাকলেও ভিতর থেকে কোন সাড়া-শব্দ না পেয়ে আমাকে বিস্তারিত জানালে আমি পুলিশে খবর দিলে থানার এসআই মাসুদ এসে বাইরে থেকে তাকে ডেকে কোন প্রতুত্তর না পেয়ে তার শয়ন কক্ষের একটি জানালার শিকল ভাঙ্গলে দেখা যায় গলায় কাপড় পেচানো রক্তাত্ব মৃতদেহ পরে রয়েছে। দেয়ালে রক্তের ছাপ ও ডানহাতটি বালিশের নিচে। তবে কি কারনে এমন ঘটনা ঘটতে পারে বিষয়টি তিনি বলতে পারেন নি।
       পরে সেখানে সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) জয়ব্রত পাল ঘটনা স্থলে যান। প্রাথমিক ভাবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বাড়ীর মালিক আশিকুর রহমান. বিদ্যুৎ অফিসের সাহায্যকারী মাহাফুজ, আবুল কালাম আজাদ, বীল বিতরণকারী অর্পন, সাঈদ, ড্রাইভার সোহাগ, নীল মটস্ এর কর্মচারী গৌতমসহ ৭জনকে আটক করে পুলিশ।
      এদিকে তার হত্যার খবর ছড়িয়ে পরলে উৎসুক জনতা ভিড় জমায় বাড়ীটির সামনে। এসআই মাসুদ হত্যার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান,আমি এসে একটি জানালার শিকল খুলে দেখতে পাই গলায় কাপড় পেচানো রক্তাত্ব মৃতদেহ।
     ডোমার থানার অফিসার্স ইন চার্জ মোঃ মোকছেদ আলী মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান,লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেলার মর্গে প্রেরন করা হবে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।
নবাবগঞ্জে করতোয়া নদী থেকে উদ্ধার হওয়া জুলফার হত্যা মামলার আসামী গ্রেফতার

নবাবগঞ্জে করতোয়া নদী থেকে উদ্ধার হওয়া জুলফার হত্যা মামলার আসামী গ্রেফতার

নবাবগঞ্জ থেকে এম এ সাজেদুল ইসলাম(সাগর)


     দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার করতোয়া নদীতে জুলফারকে হত্যা করে পানিতে ভাসিয়ে দেয়।নবাবগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ সুব্রত কুমার সরকার জানান, অভিযুক্ত উত্তর বোয়ালমারী গ্রামের মোসলেম উদ্দিনের পুত্র রমজান আলী (৩০) কে আটক করে আদালতে সোপর্দ করা হলে সে জুলফার হত্যার অপরাধ স্বীকার করে বিচারকের নিকট স্বীকারোক্তি দিয়েছে। 
     দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলায় গত ৩০/০৬/২০১৮ ইং তারিখে সকালে উপজেলার করতোয়া নদীতে জুলফিকার আলী ওরফে জুলফার(৩০) নামে এক মাদক ব্যবসায়ীর লাশ পাওয়া গেছে। সে উপজেলার বিনোদনগর ইউনিয়নের কাঁচদহ গ্রামের আঃ মজিদের ছেলে।জুলফিকার ওরফে জুলফারের স্ত্রী পরিবানু জানান জুলফার গত মঙ্গলবার রাত ১০ টার দিকে বাড়ী থেকে নদীতে নৌকা দেখতে বের হয়ে যাওয়ার পর আর বাড়ী ফিরে আসে নাই। পরদিন বুধবার পরিবারের সদস্যরা দিনভর তার সন্ধান করতে থাকেন।
      এক পর্যায়ে জাতের ঘাট নামক স্থানে তার নৌকা, চটের বস্তা,পরনের কাপড়,অপরিচিত একটি গেঞ্জি ও কয়েক পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট খুঁজে পায়। এরপর বৃহষ্পতিবার শালপাড়া নামক স্থানে তার লাশ নদীতে ভাসমান অবস্থায় রয়েছে বলে সংবাদ পায়। জুলফারকে কে বা কারা হত্যা করেছে সে ব্যাপারে তার স্ত্রী পরিবানু স্পষ্ট কিছু না বলতে পারলেও তার সন্দেহের তীর নিজ গ্রামের একজনকে অভিযুক্ত করেছিল। এলাকাবাসী জুলফার হত্যার অভিযুক্ত বিচারের মাধ্যমে ফাসির দাবি জানিয়েছেন।  


জামায়াতের জেলা আমির আনোয়ারুল সহ নবাবগঞ্জের উপজেলা আমির সহ ১০ নেতাকর্মী আটক

জামায়াতের জেলা আমির আনোয়ারুল সহ নবাবগঞ্জের উপজেলা আমির সহ ১০ নেতাকর্মী আটক

নবাবগঞ্জ (দিনাজপুর) থেকে এম এ সাজেদুল ইসলাম(সাগর)


       একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চার দলীয় ঐক্যজোটের ও দিনাজপুর ৬ আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী মো. আনোয়ারুল ইসলাম ও নবাবগঞ্জ উপজেলা আমির আবুল কাশেম সহ ১০ জন নেতাকর্মীকে আটক করে জেলহাজতে প্রেরন করেছে পুলিশ।  হাকিমপুর থানা সুত্রে জানা গেছে, নাশকতার মামলায় দিনাজপুর জেলা জামায়াতের আমীর মো. আনওয়ারুল ইসলামকে আটক করেছে পুলিশ।
      গত  সোমবার সন্ধ্যা ৬টায় হাকিমপুর উপজেলার হরিহরপুর বাজার এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।হাকিমপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আনোয়ার হোসেন জানান, দিনাজপুর জেলা জামায়াতের আমীর মাও. আনওয়ারুল ইসলামের বিরুদ্ধে নাশকতা মামলা থাকায় তাকে আটক করা হয়েছে।
       এদিকে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার পুলিশ বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে নাশকতা কাজের প্রস্তুতি ও রাষ্ট্রদ্রোহি কাজের ষড়যন্ত্রের অপরাধে জামাত নেতাদের আটক করে পুলিশ।  গত সোমবার দিবাগত রাতে নবাবগঞ্জ থানা পুলিশ বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে জামায়াতে ইসলামীর উপজেলা শাখার আমীর সহ ১১ জন নেতাকর্মীকে আটক করে জেলহাজতে প্রেরণ করে। 
       আটকৃতরা হল নবাবগঞ্জ উপজেলার জামায়াতের আমীর ও কুড়াহার গ্রামের ফজল উদ্দিনের পুত্র মাওলানা আবুল কাশেম, জামায়াত কর্মী শাল্টিমুরাদপুর গ্রামের নুরনবী, রামপুর বাজারের খলিলের পুত্র মশফিকুর রহমান, কামরপাড়া আব্দুর গফুরের পুত্র আব্দুর রাজ্জাক, আফতাবগঞ্জ বাজারের রিপন, সাজেদুর রহমান, মনিরুল, কামরুজ্জামান, শাহিন, মাহাবুবুর রহমান, রেহেনুর রহমান।
       এ ঘটনায় নবাবগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক মো. ফজলার রহামান বাদী হয়ে নাশকতা ও রাষ্ট্রদ্রোহি কাজের প্রস্তুতি নেবার অভিযোগে বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে মামলা দায়ের করেন যার নং-২৭, তারিখ ১৬ সেপ্টেম্বর। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক মো. মিজানুর রহমান জানান, তদন্ত শেষে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করা হবে।

জৈন্তাপুরে অভিযান চালিয়ে এস্কেভেটর জব্দ, ৫০হাজার টাকা জরিমানা

জৈন্তাপুরে অভিযান চালিয়ে এস্কেভেটর জব্দ, ৫০হাজার টাকা জরিমানা

জৈন্তাপুর (সিলেট) প্রতিনিধি- গোলাম সরোয়ার বেলাল


     সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট অভিযান পরিচালনা করে ১টি এস্কেভেটর জব্দ এবং ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অাদায় করেছে অাদালত৷
     এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায় পাহাড় খেকু চক্রের সদস্য দীর্ঘ দিন হতে উপজেলার বিভিন্ন স্থানের পাহাড় টিলা কর্তন করে অাসছে৷ গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে গতকাল ১২ সেপ্টেম্বর বিকাল ৩টায় নিজপাট ইউনিয়নের সারীঘাট ডৌডিক গ্রামে সাবেক নিজপাট ইউপি সদস্য অাব্দুল্লাহ মিয়ার বাড়ীতে পাহাড় কাটা হচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিত্বে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মৌরীন করিমের নির্দেশনায় সহকারী কমিশনার(ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্যাট মুনতাসির হাসান পলাশ এর নেতৃত্ব জৈন্তাপুর মডেল থানার এস অাই হাবিব সহ সঙ্গীয় ফৌস নিয়ে অভিযান পরিচালনা করেন৷ এসময় পাহাড় কাটার দায়ে পাহাড় খেকু চক্রের অন্যতম সদস্য হরিপুর এলাকার কালা মিয়ার মালিকানাধীন এস্কেভেটরটি জব্দ করা হয়৷ এসময় পাহাড় কাটার দায়ে কর্তনকারীকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়৷ 
     নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকাবাসী জানান কালা মিয়া দীর্ঘ দিন হতে হরিপুর সহ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে পাহাড় ও টিলা রকম ভুমি এস্কেভেটরের সাহায্যে কর্তন করে মাটি ক্রয় বিক্রয় করে অাসছে৷ এছাড়া তারা অারও বলেন সাবেক ইউপি সদস্য অাইনকে তোয়াক্কা না করে প্রভাব খাটিয়ে দীর্ঘ ২বৎসেরর বেশি সময় নিজবাড়ী ও তদসংলগ্ন এলাকার পাহাড় কেটে পরিবেশর ধ্বংসযজ্ঞ চালাচ্ছেন৷ এছাড়া প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলতে চায় না৷ প্রশাসনের অভিযানকে স্বাগত জানান এবং এস্কেভেটেরটি না ছাড়ার জন্য প্রশাসনের কাছে অনুরোধ করেন৷ 
    এ বিষয়ে জানতে সহকারী কমিশনার (ভূমি) অভিযানের কথা স্বীকার করে প্রতিবেদককে জানান গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে অামরা অভিযান পরিচালনা করে পাহাড় কাটায় ব্যবহৃত এস্কেভেটর জব্দ করেন এবং পাহাড় কাটায় ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন৷
কচুয়ায় হত্যা মামলার পলাতক আসামী গ্রেফতার

কচুয়ায় হত্যা মামলার পলাতক আসামী গ্রেফতার

আবু সায়েম মৃধা - কচুয়া প্রতিনিধি


     কচুয়ায় সিএনজি চালক কেরামত আলী হত্যা মামলার পলাতক আসামী ফাতেমা বেগমকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আতাউর রহমান ভূঁইয়ার নেতৃতে এসআই সাদেকুর রহমান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযান চালিয়ে উপজেলার কাদলা ইউনিয়নের গুলবাহার গ্রাম থেকে   মোশারফের স্ত্রী ফাতেমা বেগমকে (২৫) গ্রেফতার করা হয়। বুধবার গ্রেফতারকৃত ফাতেমা বেগমকে চাঁদপুরের বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়।
     প্রসংগত ২৩ আগষ্ট শুক্রবার রাতে উপজেলার বিতারা ইউনিয়নের লইয়ামেহের পাঁচধারা গ্রামে ফাতেমা বেগমের স্বামী মোশারফ হোসেনের সাথে তার ভাগিনা আলআমিনের তুচ্ছঘটনায় কথাকাটি থেকে হাতাহাতি হয়। এসময় সিএনজি চালক কেরামত আলী এগিয়ে আসলে মোশারফ হোসেন ও তার দলবল কেরামত আলীকে লাঠি দিয়ে আঘাত করে। মুমূর্ষ অবস্থায় কেরামত আলীকে হাসপাতালে নেওয়ার সময়  পথিমধ্যে তার  মৃত্যু হয়। এঘটনায় কেরামত আলীর ছেলে জসিমউদ্দিন ২৪ আগষ্ট ৭ জনকে বিবাদী করে কচুয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।
     এ ব্যাপারে কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আতাউর রহমান ভূইয়া জানান, মামলার অপর পলাতক আসামীদের গ্রেফতারের ব্যাপারে থানা পুলিশ তৎপর রয়েছে।